সোমবার, ২৪ Jun ২০২৪, ০৩:১৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
চট্টগ্রাম ১০দফা দাবিতে চতুর্থ শ্রেণি সরকারি কর্মচারী সমিতির স্মারকলিপি প্রদান সোনাইমুড়ী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জায়গা দখল নিতে হামলা, নারীসহ ৫ জন আহত হারানো বিজ্ঞপ্তি চমেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে টিকিটে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ দরবারে মূসাবীয়ার ৭৭ তম পবিত্র খোশরোজ শরীফ অনুষ্ঠিত আনোয়ারায় মাজার মসজিদের  জমি দখলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ইউসেপ স্কুলে নবীন বরন ও এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের জয় ডাক্তার সেজে আইসিইউতে ল্যাব টেকনিশিয়ান বাকলিয়া থানার বিশেষ অভিযানে মোটরসাইকেলসহ চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

কর্ণফুলী নদীতে অপরিকল্পিত ড্রেজিং বন্ধের দাবীতে বোয়ালখালী ইউএনও স্বারকলিপি প্রদান

চট্টগ্রাম থেকে মো.মাইন উদ্দীন :

কর্ণফুলী নদী ভরাটের হাত থেকে রক্ষা করতে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ নৌবাহিনীকে দিয়ে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নাব্য বৃদ্ধি পাওয়ায় যে সুফল পেতে শুরু করেছে।
কিন্তু বোয়ালখালী উপজেলায় চরখিজিরপুর কয়েকটি ওয়ার্ড়ে নদীতে অপরিকল্পিত ড্রেজিংয়ের কারনে পূণরায় ভাঙগন সম্ভনা দেখছে এলবাকাবাসী।
কয়েক বছর পূর্বে এলাকার হাজার হাজার মানুষর ঘরবাড়ি ও ফসলি জমি নদী গর্ভে হারিয়ে গেছে। এখন নদী ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে সহস্রাধিক মানুষের ঘরবাড়ি, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও জমি। এতে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন এসব গ্রামবাসীরা। নির্ঘুম রাত কাটছে গ্রামের বাসিন্দাদের। তারা ভাঙন প্রতিরোধে দ্রুত ব্লক স্থাপন ও ড্রেজিং বন্দের দাবি জানান।
স্থানীয় বাসিন্দা সুজায়েত আলী বলেন,তিন বার আমার ঘরবাড়ি ও ফসলি জমি কর্ণফুলীর নদী গর্ভে হারিয়ে গেছে। এখন নদীর পাড়ে এককড়া জায়গায় ঘরকরে কোন মতে স্ত্রী সন্তান নিয়ে বসবাস করছি আবার ও নদী ভাঙ্গন শুরু হলে কোথায় যাবো চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটছে। নদীভাঙনে নিঃস্ব হয়েছে মো.ছৈয়দ,রহমত আলী,আজম খান,মো. ইদ্রীস,ইকবাল আরফান ও এমরানের মতো কয়েক শত পরিবার।
সরেজমিনে দেখা যায়, বর্ষণে কর্ণফুলীর তীব্র স্রোতে এই বর্ষাতেই এসব এলাকার বেশ কিছু ঘরবাড়ি-ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। অন্য কোথাও যাওয়ার উপায় না পেয়ে অনেকেই ঝুঁকি নিয়ে নদী পাড়ের বসতঘরেই বসবাস করছেন।
চরখিজিরপুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হোসনে আরা বেগম জানান, যদি জনবসতি এলকার পাশে অপরিক্লপিত ড্রেজিং করা হয় তাহলে বর্ষা এলেই নদীর তীব্র স্রোতে ভাঙন দেখা দিবে। পূর্ব পাশে ড্রেজিং না করে পশ্চিম পাশে করা হয় তাহলে ভাঙগার সম্ভনা নাই ।
কর্ণফুলীর অপরিক্লপিত ড্রেজিং বিষয়ে বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মামুন জানান,এলাকার বাসিন্দরা বসতভিটা রক্ষার দাবীতে স্বাকলিপি দিয়েছেন। বন্দর কর্তৃপক্ষ ড্রেজিংয়ের অনুমোদন দিয়েছেন।আমি সংশ্লিষ্ট এলাকায় পরিদর্শন করে পরবর্তী পদক্ষেপ নিবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত