সোমবার, ২৪ Jun ২০২৪, ০৪:৫৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
চট্টগ্রাম ১০দফা দাবিতে চতুর্থ শ্রেণি সরকারি কর্মচারী সমিতির স্মারকলিপি প্রদান সোনাইমুড়ী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জায়গা দখল নিতে হামলা, নারীসহ ৫ জন আহত হারানো বিজ্ঞপ্তি চমেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে টিকিটে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ দরবারে মূসাবীয়ার ৭৭ তম পবিত্র খোশরোজ শরীফ অনুষ্ঠিত আনোয়ারায় মাজার মসজিদের  জমি দখলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ইউসেপ স্কুলে নবীন বরন ও এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের জয় ডাক্তার সেজে আইসিইউতে ল্যাব টেকনিশিয়ান বাকলিয়া থানার বিশেষ অভিযানে মোটরসাইকেলসহ চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

যত দ্রুত সম্ভব সব রাস্তাঘাট মেরামত করে দেয়া হবে ক্ষতিগ্রস্ত নালা-খাল পরিদর্শনে মেয়র

 

প্রবল বর্ষণ ও পানির তোড়ে ক্ষতিগ্রস্ত খাল–নালা ও রাস্তাঘাট পরিদর্শনে গিয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, যত দ্রুত সম্ভব সমস্ত রাস্তাঘাট যথাযথভাবে সংস্কার ও মেরামত করে দেয়া হবে। সকল ওয়ার্ডের কাউন্সিলরসহ সংশ্লিষ্ট প্রকৌশল বিভাগকে দ্রুত জরিপ সম্পন্ন করে কাজ শুরু করার জন্য ইতিমধ্যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সেই মোতাবেক অধিক জনগুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন রাস্তা সংস্কারের কাজ ইতিমধ্যে শুরু করা হয়েছে। অচিরেই অন্যান্য সকল রাস্তা ও গলিপথেরও কাজ শুরু করে দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করা হবে।

গতকাল শনিবার চান্দগাঁও এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা ঘাট পরিদর্শনকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৪ নম্বর চান্দগাঁও ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সিটি কর্পোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মেয়র বলেন, আমরা জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবের মধ্যে রয়েছি। তাই প্রাকৃতিক বৈরিতা আমাদের পিছু ছাড়ছে না। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে সমুদ্রপৃষ্টের উচ্চতা দিনদিন বেড়ে চলেছে। আবার কর্ণফুলী নদীর তলদেশ ভরাট হয়ে নাব্যতা হারাচ্ছে প্রতিনিয়ত। অতিরিক্ত পলিথিনের কারণে ড্রেজিং কাজ দুরূহ হয়ে পড়েছে। এজন্য আমাদের অসচেতনতাই অনেকটা দায়ী। আমাদেরকে প্রিয় নগর ও এর পরিবেশ সংরক্ষণে আরো অনেক বেশী নাগরিক সচেতনতার পরিচয় দিতে হবে। দুর্ভোগ কেটে গেলে আমরা তা খুব সহজেই ভুলে বসে থাকি। আমরা আমাদের বর্জ্যসমূহ সঠিক স্থানে না রেখে যত্রতত্র ফেলে দিয়ে কিংবা খাল নালায় নিক্ষেপ করে পানি প্রবাহকে রুদ্ধ করে ফেলি। সিটি কর্পোরেশনের কর্মীরা বারবার পরিষ্কার করার পরও পুনরায় নানান বর্জ্য পলিথিনে নালা ভরাট হয়ে যায়। আবার বৃষ্টি হলে বিক্ষিপ্তভাবে ছুড়ে ফেলা ময়লা, আবর্জনা ও বর্জ্য খাল নালায় গিয়ে ব্রিজ, কালভার্ট এবং গ্যাস ও ওয়াসাসহ বিভিন্ন সেবা সংস্থার দ্বারা স্থাপিত পাইপ লাইনের সঙ্গে আটকে গিয়ে পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত করে। তদুপরি, নানা সময়ে নির্বিচারে বৃক্ষ নিধন করে নগরের পাহাড়গুলোকে ন্যাড়া করে দেয়া ও পাহাড়ের মাটি কাটার ফলে পাহাড় থেকে প্রচুর বালি ও মাটি বৃষ্টির পানির সাথে নালায় এসে পড়ে। নির্মাণ কাজের অব্যবহৃত বালি যথাযথভাবে আটকে রাখার ব্যবস্থা না করার ফলেও সেগুলো নালায় নেমে যায়। এরমধ্যে আরো যুক্ত রয়েছে সিডিএ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন মেগা প্রকল্পের কাজের খাতিরে বিভিন্ন খালের নানা স্থানে দেয়া বাঁধ। তাই আমি নাগরিক সমাজকে আরো সচেতন হওয়ার জন্য এবং অন্যান্য সেবা সংস্থাকে যথাযথ সমম্বয় বজায় রাখার আহ্বান জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত