শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪, ০৭:১৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
চট্টগ্রাম ১০দফা দাবিতে চতুর্থ শ্রেণি সরকারি কর্মচারী সমিতির স্মারকলিপি প্রদান সোনাইমুড়ী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জায়গা দখল নিতে হামলা, নারীসহ ৫ জন আহত হারানো বিজ্ঞপ্তি চমেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে টিকিটে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ দরবারে মূসাবীয়ার ৭৭ তম পবিত্র খোশরোজ শরীফ অনুষ্ঠিত আনোয়ারায় মাজার মসজিদের  জমি দখলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ইউসেপ স্কুলে নবীন বরন ও এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের জয় ডাক্তার সেজে আইসিইউতে ল্যাব টেকনিশিয়ান বাকলিয়া থানার বিশেষ অভিযানে মোটরসাইকেলসহ চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

সোনাইমুড়ী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জায়গা দখল নিতে হামলা, নারীসহ ৫ জন আহত

 

সোনাইমুড়ী প্রতিনিধি।

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে পাঁচ নারীসহ ছয়জনকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার সকাল ১০ ঘটিকার সময় উপজেলা সোনাইমুড়ী উপজেলার আমকি বাজার কেগনা আশরাফ চৌকিদার বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন-ছালেহা বেগম (৭৫), আয়শা আক্তার (৩৬),কুলছুমা(৩৯), মির হোসেন (৫৪)ও মহিন। গুরুতর আহত অবস্থায় পাঁচজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ছালেহা বেগম ও আয়েশা আক্তারের শারীরিক অবস্থা অবনতি হওয়ায় তাদেরকে উন্নতমানের চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২৮ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছে।

ভুক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, কেগনা আশরাফ আলী চৌকিদার বাড়ির মৃত মনসুর আহাম্মদ ও সিরাজুল ইসলামের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। বিষয়টি মীমাংসার জন্য বেশ কয়েকবার সালিসও হয়। সিরাজুল ইসলাম এর পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় এলাকার জনপ্রতিনিধিরা বেশ কয়েকবার মীমাংসা করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

এর মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার ফের এ নিয়ে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সিরাজুল ইসলাম এর লোকজন হঠাৎ মনসুর আহাম্মদের পরিবারের উপর অতর্কিত হামলা শুরু করে।

এ সময় মৃত মনসুর আহমদের স্ত্রী ছালেহা বেগম তার সন্তানদের আত্মচিৎকার পরিবারের অন্যরা বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

অভিযুক্তরা হলো -১.খোকন পিতা -লেদু মিয়া, ২.মনু পিতা – সিরাজুল ইসলাম,৩.হাফিজুর রহমান পিতা- সিরাজুল ইসলাম,৪.সোহাগী স্বামী- মুরাদ হোসেন ৫.ফাতেমা পিতা- ইয়াকুব আলী ৬.ইয়াকুব আলী পিতা-মৃত মুসা মিয়া।
অভিযুক্ত মনুর মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করেও যোগাযোগ করা যায়নি।

এ ব্যাপারে সোনাইমুড়ী থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলায় নেয়া হয়েছে । তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দ্রুত সন্ত্রাসীদেরকে গ্রেপ্তার করুন এবং মুক্তিযুদ্ধ পরিবারকে রক্ষা করার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানান এলাকাবাসী।

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন :

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত